বুধবার, ১৭ Jul ২০১৯, ১০:৫৪ পূর্বাহ্ন

pic
শিরোনাম :
গাইবান্ধায় ৪ কি.মি কাঁচা রাস্তার কারণে সাধারণ মানুষের চরম দুর্ভোগ সাদুল্যাপুরে ইউএনও’র মোবাইল নম্বর ক্লোন প্রতারক চক্রকে সনাক্তকরণের চেষ্টা চলছে অনিয়ম-দুর্নীতি লুটপাটের টাকা ফেরত ও জড়িতদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন গাইবান্ধায় জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ সাঘাটায় ড্রিম সিটি পার্কে ঈদ আনন্দ নির্ধারিত মূল্যে ধান ক্রয়ের দাবিতে পলাশবাড়ীতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও অবস্থান কর্মসূচী গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাঁধ সংস্কার নদী ভাঙন ও জলবায়ু পরিবর্তন ঝুঁকিরোধে বিশেষ বরাদ্দের দাবি গাইবান্ধায় ক্রিকেট লীগ গাইবান্ধায় জাতীয় সংসদ হুইপের দুঃস্থদের মধ্যে অনুদান উপজেলা পরিষদ নির্বাচন – সুন্দরগঞ্জে ১৬ জনের মনোনয়নপত্র জমা
নোটিশ :
আপনার ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে কল করুন 01715-418384
সাদুল্যাপুরে ইউএনও’র মোবাইল নম্বর ক্লোন প্রতারক চক্রকে সনাক্তকরণের চেষ্টা চলছে

সাদুল্যাপুরে ইউএনও’র মোবাইল নম্বর ক্লোন প্রতারক চক্রকে সনাক্তকরণের চেষ্টা চলছে

সাদুল্যাপুরে ইউএনও’র মোবাইল নম্বর ক্লোন প্রতারক চক্রকে সনাক্তকরণের চেষ্টা চলছে

গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের ব্যবহৃত সরকারী মোবাইল নম্বরটি গত সোমবার দুপুর থেকে প্রতারক চক্র ক্লোন (হ্যাক্) করেছে। নম্বারটি ক্লোনের পর থেকে প্রতারক চক্র বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে ফোন করে টাকা হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে সর্ব সাধারণকে সর্তক থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

প্রতারণার ফাঁদে পা না দিতে প্রশাসনের ফেসবুকেও পোস্ট দেয়া হয়েছে। এব্যাপারে সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নবীনেওয়াজ বলেন, ‘সোমবার দুপুর থেকে হঠাৎ সরকারী ব্যবহ্নত মোবাইল নম্বরটি (০১৭৬২৬৯৫০৭৪) ক্লোন (হ্যাক্) করার ঘটনা ঘটেছে। ক্লোন করা নম্বর দিয়ে একটি প্রতারক চক্র মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা, শিক্ষক ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে সরকারী বরাদ্দ দেয়াসহ বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে টাকা দাবি করা হয়। ইতিমধ্যে প্রতারক চক্রের ফাঁদে পড়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির এক নেতা ৭ হাজার টাকা বিকাশে পাঠিয়ে প্রতারিত হয়েছেন। এছাড়া শিক্ষা উপকরণ ও বিভিন্ন সরকারী বরাদ্দ দেয়ার জন্য খরচ হিসেবে বিভিন্নজনের কাছে বিকাশে টাকা দাবি করে প্রতারকরা। তবে আর কেউ প্রতারিত হয়েছে কিনা জানা যায়নি।

এ বিষয়ে সাদুল্যাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো আরশেদুল হকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ‘বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নাম্বার ক্লোন ও বিকাশে টাকা হাতিয়ে নেয়ার সঙ্গে জড়িতদের সনাক্ত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ইতিমধ্যে তাদের দুইজনকে সনাক্ত করা হয়েছে। তবে তাদের সম্পর্কে আরও তথ্য-উপাত্ত যাচাইয়ের পর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
উল্লেখ্য, সম্প্রতি সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) উত্তম কুমার রায়ের ব্যবহৃত সরকারী নম্বরটি (০১৭৬২৬৯৫০৭১) ক্লোন করে একটি প্রতারক চক্র। পরে নম্বারটি ব্যবহার করে শিক্ষক, সরকারী কর্মকর্তাসহ বিভিন্নজনের কাছে টাকা দাবি করা হয়। তবে সেসময় কেউ প্রতারিত হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

95 − = 94

add

© All rights reserved © 2019 GaibandhaNews.Com DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY ThemesBazar.Com