বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৭:২১ অপরাহ্ন

pic
শিরোনাম :
ফুলছড়িতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মানববন্ধন কর্মসূচি পালন সাঘাটায় আশার আলো প্রভাতী সংস্থার উদ্বোধন ফুলছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জনবল সংকট গাইবান্ধার মহিমাগঞ্জ ইউপি’র উপ-নির্বাচনে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রুবেল আমিন শিমুল চেয়ারম্যান নির্বাচিত গাইবান্ধার মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদের উপ-নির্বাচন আজ মহিমাগঞ্জে এপেক্স ক্লাব জেলা-৭ এর তৃতীয় বোর্ড সভা অনুষ্ঠিত গাইবান্ধায় ১২টি স্কুল নদীতে বিলীন হওয়ায় গাছ তলায় পাঠদান গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের বিশেষ অভিযানে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল,পিকাপ ভ্যানসহ আটক-২ গাইবান্ধা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানসহ প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে লিগ্যাল নোটিশ সুন্দরগঞ্জে প্রতিহিংসাবশত বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন
নোটিশ :
আপনার ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে কল করুন 01715-418384
সাঘাটায় পএিকা বিক্রেতা ভোলা কষ্টে আছেন

সাঘাটায় পএিকা বিক্রেতা ভোলা কষ্টে আছেন

সাঘাটায় পএিকা বিক্রেতা ভোলা কষ্টে আছেন

সাঘাটা (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি: গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার বোনারপাড়াসহ আশে পাশের এলাকায় একনামে পরিচিত ভোলা চাচা। পত্রিকা নেওয়ার কথা ভাবলেই ভোলা চাচার কথা মনে পরে সবার। বয়সের ভারে আক্রান্ত হয়ে দুই বছর যাবৎ প্যারালাইসিন্সে আক্রান্ত ভোলা চাচা। জীবন সংগ্রামে থেমে নেই । সকাল হলেই অতিকষ্টেই বিভিন্ন পত্রিকা হাতে নিয়ে দুপুর পর্যন্ত চলে খুড়িয়ে খুড়িয়ে পথচলা । দ্বারে দ্বারে ঘুরে পত্রিকা বিক্রি করা আয় থেকেই সংসার চলে তার।

আশির দশকে তামাক ব্যবসা বাদ দিয়ে পত্রিকা বিক্রিতে নিয়োজিত হন গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা উপজেলার পশ্চিম রাঘবপুর গ্রামের ভোলা ব্যাপারী। সংসারে দুই ছেলে থাকলেও যার যার সংসার নিয়ে ব্যস্ত তারা। দৈনিক বিভিন্ন পত্রিকা বিক্রি করে প্রায় এক যুগ ধরে সংসার ভালই চলছিল তার। শরীর দূর্বল হয়ে প্যারলাইসিন্স রোগে আক্রান্ত হন ভোলা মিয়া। বন্ধ হয়ে যায় তার সংসারের চাকা। চিকিৎসা করার জন্য অর্থ সংকট হয়। অনেক কষ্টে এখন কোন মতে হেটে চলতে পারেন তিনি।

তারপরও মনোবল হারাননি । আবারও শুরু করেন পত্রিকা বিক্রির পেশা। সামান্য পথ হাটতে অনেক সময় লাগে তার। জীবন সায়েন্নে এসে সংগ্রামের সাথে কষ্ট করে হলেও দ্বারে দ্বারে ঘুরে পত্রিকা বিক্রি করা তেমন কোন সমস্যাই হয়না তার। গতকাল এ প্রতিবেদকের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, বাবা রে মানুষের কাছে হাত পাততে চাইনা। শরীর যে কয়দিন চলবে পেপার বেচেই চলতে চাই। ‘পেপারোত নেকে কি হবে বাবা‘।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

24 − 15 =

Advertisement

Advertisement

© All rights reserved © 2019 GaibandhaNews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x